শিরোনাম :
রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ০১:৪৬ অপরাহ্ন

ফতুল্লায় শাশুড়ি হত্যা মামলার পলাতক আসামি নাজমুল হোসেন হিরা গাজীপুরে আটক –

প্রতিনিধির নাম / ৪৮ বার
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ৬ জুন, ২০২৪

ফতুল্লায় শাশুড়ি হত্যা মামলার পলাতক আসামি নাজমুল হোসেন হিরা গাজীপুরে আটক –

মোঃ মিঠু আহম্মেদ নারায়ণগঞ্জ:
নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় বৃদ্ধা শাশুড়িকে হত্যার ঘটনায় মেয়ের জামাই নাজমুল হোসেন হিরা (৩৮) কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এ সময় হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত তালা এবং লুন্ঠিত কানের দুল বিক্রির ৫ হাজার ৫ শত টাকা উদ্ধার করা হয়েছে বলে পুলিশ জানায়।

বুধবার (৫ জুন) সকাল ১০টার দিকে গাজীপুর জেলার কাপাসিয়া থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃত নাজমুল হোসেন হিরা নারায়নগঞ্জ জেলার ফতুল্লা মডেল থানার দেওভোগ মাদ্রাসা এলাকার মৃত মনা মুন্সির পুত্র।

এর আগে গত ৪ মে (মঙ্গলবার) বিকেলে নিহত বৃদ্ধা আম্বিয়া খাতুনের ছেলে সাইফুল ইসলাম সজিব বাদী হয়ে নাজমুল হোসেন হিরা কে আসামি করে ফতুল্লা মডেল থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলায় উল্লেখ করা হয়, ফতুল্লার উত্তর নরসিংপুর এলাকার সামসুল আলমের মোড় সংলগ্ন নিজের বাড়িতে বৃদ্ধা মা আম্বিয়া খাতুন (৮০) স্ত্রী এবং বোন ও বোনের স্বামী সাইফুল ইসলাম সজিবকে নিয়ে বসবাস করেন। তাদের মধ্যে সাইফুল ইসলাম সজিব কোন কাজকর্ম করেনা। নেশা করে ঘুরে বেড়ায় এবং প্রায় সময় নেশার টাকার জন্য বাসায় উৎপাত করেন। সোমবার বিকেলে বাসায় বৃদ্ধ মাকে একা পেয়ে তাকে বালিশ চাপা দিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা শেষে ১০ আনা ওজনের স্বর্নের কানের দুল নিয়ে পালিয়ে যায়।

এই ঘটনার বিষয়ে ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার (ওসি) নূরে আজম জানান,এই হত্যার ঘটনার সংবাদ পাওয়ার পরপরই আমরা ঘটনাস্থলে যাই এবং পর্বতীতে সকল নিয়ম মেনেই হত্যার সঙ্গে জড়িত ভিকটিমের মেয়ের জামাই আসামি নাজমুল হোসেন হিরা কে গ্রেপ্তার করার চেস্টা করে আসছিলাম। তবে সে সময় আসামি নাজমুল হোসেন হিরা নিজেকে রক্ষার জন্য আত্মগোপন করেন ।তবে আমরা আমাদের মতো আসামিকে গ্রেফতার করার জন্য তদন্ত করতে থাকি ও তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় তার অবস্থান নিশ্চিত করতে সক্ষম হয়ে ৫ জুন বুধবার সকাল ১০ টার দিকে গাজীপুর জেলার কাপাসিয়া থানার উত্তরখামস্থ গ্রেপ্তাকৃতের বোনের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করি ।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে হত্যাকান্ডের কথা স্বীকার করে পুলিশেকে জানায়, সে মাদক কেনার জন্য নিহতের নিকট টাকা দাবী করে। টাকা দিতে অস্বীকার করলে ঘরে থাকা তালা দিয়ে ঘাড়ের বাম পাশ্বে আঘাত করে পরে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যা নিশ্চত করে। পরে কানে থাকা কানের দুল নিয়ে গাজীপুর চলে যায়। সেখানে এক দোকানে কানের দুল ৩৫ হাজার টাকা বিক্রি করে দেয়। তারপর সে তার বোনের বাড়িতে গিয়ে আত্নগোপন করে। সেখান থেকেই পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে।

Facebook Comments Box


এ জাতীয় আরো সংবাদ